Monday, January 19, 2009

স্বপ্ন সমুদ্র

আমি আজ সমুদ্র দেখব, যে করেই হোক সমুদ্রকে কাছে থেকে দেখার শখ আমার। আমি সমুদ্রকে দেখব আমার করে। আজ আমার কোন কাজ নেই তাই খুব সকালে আমি সমুদ্রের কাছে চলে এলাম। সূর্য ওঠা থেকে ডোবা পর্যন্ত সমুদ্রের কাছে থাকার দৃঢ় প্রতিজ্ঞ আমার। যাই হোক ,সমুদ্র শুধুই আমার আমি আমার মত করে সমুদ্রকে দেখতে চাই। অবশেষে রক্তিম আভায় চারিদিক আলোকিত করে দেখা পেলাম সূর্যের। সূর্য, আমি এব সমুদ্র আমরা অনেকক্ষণ কথা বললাম। সমুদ্রকে আমি অনেক প্রশ্ন করলাম। সে আমাকে সবগুলো প্রশ্নের উত্তর দিল। সমুদ্রকে আমি প্রশ্ন করলাম তুমি এত বিশাল কেন সমুদ্র আমাকে উত্তর দিল ,তোমরা আছো বলেই। তার ভাল লাগার সাথে আমার ভালো লাগা মিলে গেল। আর এর মধ্যে সূর্য আমাকে প্রশ্ন করল, কি শুধু সমুদ্রের সাথেই কথা বলবে আমার সাথে কথা বলবে না । আমি অবাক হয়ে তার দিকে তাকালাম, ও .. তাই তো তোমার সাথে ও আমার কথা আছে।
আমি তার দিকে তাকিয়ে বললাম , বলতো তুমি প্রতিদিন সকালে ওঠ আবার সন্ধ্যায় অস্তমিত হয়। আসলে তুমি কোথায় যাও….হেসে সূর্য আমাকে বলল আমার যেখানে শুরু সেখানেই আমার শেষ। আমি এর উত্তর বুঝলাম না।
আস্তে আস্তে দেখলাম সূর্যটা খুব বড় হতে লাগলো্ ।
বড় হতে হতে ,আমার সাথে কথা বলতে বলতে, আমার সামনে থেকে অনেক দূরে যেতে লাগলো এর মধ্যে সে ছোট হতে লাগল ।আমি বললাম যেও না ,আমাকে ছেড়ে যেও না, সূর্য তখন উত্তর দিল, যাচ্ছি না.. এই তো আমি তোমার কাছাকাছি । তাহলে তোমার সাথে আমার এত দূরত্ব কেন।আগের মত আমার কাছে এসো না । আসব!তবে তোমার মত আমার আরও অনেক বন্ধু আছে তাদের সাথেও যে আমাকে দেখা করতে হবে।আমি তো আছি , কিন্তু অনেক দূরে, আগের মত কাছাকাছি না তো! আসি বন্ধু বলে আস্তে আস্তে সূর্য আমায় ছেড়ে দূরে যেতে লাগল। আমি কিন্তু তোমার সাথে কথা বলা ছাড়া বাড়ি যাব না।আমি বসে থেকে সমুদ্রের সাথে কথা বলতে লাগলাম। সূর্য চলে যাবার পর আমি আর সমুদ্র খেলা করতে লাগলাম।আস্তে আস্তে আমি সমুদ্রের নামতে লাগলাম । সমুদ্রের ঢেউ এর সাথে খেলা করতে লাগলাম।শামুক , ঝিনুক , বালি, গাছপালা ,ছোট ছোট কীট-পতঙ্গ আর অজানা সব প্রাণীর সাথে কথা বলতে ও খেলা করা শুরু করলাম। তারা সবাই আমার সবচেয়ে ভাল বন্ধু হয়ে গেল। সমুদ্রের ঢেউ এসে আমার সাথে মজা করতে লাগল।আচ্ছা সমুদ্র তুমি এত বিশাল অথচ তোমার কোন অহংকার নেই।আর আমরা কত না বিচিত্র আমাদের মাঝে হিংসা ,অহমবোধ , হানাহানি, মারামারি, ভেদাভেদ আরোও কতকিছু। কিন্তু তোমাকে দেখলে আমার অনেক ভালে লাগে।জান সমুদ্র আমার না কেউ নেই। যে আমার মত করে আমাকে ভালবাসবে। তারা সবাই খুব ব্যস্ত থাকে নিজেকে নিয়ে। তারা কখনও আমার কথা ভাবে না । বাবা থাকেন নিজের ব্যবসা নিয়ে আর মা থাকেন তার মিটিং জনসভা আর বিউটি পার্লার নিয়ে। আমাকে সারাক্ষণ একা বাসায় থাকতে হয়। তারজন্যই আজ আমি চুরি করে বাসা থেকে পালিয়ে এসে তোমার কাছে আশ্রয় নিয়েছি।কথা বলতে বলতে এক সময় আমার দু’চোখ গড়িয়ে জল বের হয়ে এল । আর তখন সমুদ্র তার সবটুকু সৌন্দর্য দিয়ে আমার কাছে হাত বাড়ালো। এমন সময় আকাশ তার সৌন্দর্যের সবটুকু নীল ছড়িয়ে সমুদ্রের গায়ে মাখিয়ে দিল । ঠিক তখনই আমার মনে হল আকাশ যেন আমার কথা ভেবে তার নীল দিয়ে সমগ্র আকাশকে ঢেকে দিল । সমুদ্র আকাশের নীলগুলোকে খুব যত্নসহকারে তার ঢেউয়ের ভাজে ভাজে ছড়িয়ে দিল। আকাশের মত বিশাল আকৃতির ঢেউগুলো আমাকে ভাসিয়ে নিয়ে যাবে অনেক দূর।বিশাল সমুদ্রের সামনে আমাকে মনে হয় বালুর একবিন্দু ক্ষুদ্র কণা। মানুষের মনে বিশালতা বলে কিছু নেই আমার ঠিক তখনই মনে হল। এভাবেই আমার সারাটাদিন কাটল। আমি এখন সমুদের সাথে কথা বলা শেষ করলাম। ঠিক তখনই আমার সূর্যের কথা মনে হল । সূর্য তুমি কোথায়? আমি এখন বাসায় যাব। দয়া করে একটু কাছে আস না । সূর্য হেসে উত্তর দিল এই তো আসছি... পশ্চিম আকাশে লাল আভা ছড়িয়ে দি্য়ে সূর্য আবার আমার কাছে চলে এল । সূর্য আমি এখন বাসায় যাব। আচ্ছা তবে বিদায়। তারপর আমি সমুদ্রের সাথে কথা বলতে শুরু করলাম ... সমুদ্র আজ আমি তোমাকে দেখে মুগ্ধ হলাম । আমি যদি প্রতিদিন তোমার কাছে এভাবে আসতে পারতাম। তাহলে কি মজাই না হত । সমুদ্র বলল.. প্রতিদিন আসলে আমার প্রতি তোমাদের ভালবাসা কমে যেত।যাও আজকের মত বাড়ি ফিরে যাও । আবার হয় তো তোমার সাথে দেখা হবে। আমি বললাম না আমি বাড়ি যাব না !আর এর মধ্যেই মা খুকু বলে আমাকে জাগালেন । সমুদ্র দেখা আমার হল তবে তা স্বপ্নের মধ্যে সামনা সামনি না । জানিনা কখনও একাকী সমুদ্র দেখতে পারব কিনা । তবুও আমার মনে হয় আমি সমুদ্রকে দেখব আমার মত করে ।
আসলে চুরি করা বলতে আমরা সারাদিন যা ভাবি রাতে তা স্বপ্নের মাধ্যমে প্রকাশ করি ।আর একা থাকলে যে কেউ ঐ রকম ভাবতেই পারে। এটাই স্বাভাবিক। আর তা হচ্ছে স্বপ্ন সমুদ্র।

1 comment:

Brishti Bilashini said...

obosshoi apnar shopno purno hobe...apni obosshoi jaben shomudro dekhte. apnar moto amaro somudro onek prio. ami dua kori apni jeno nijer moto kore shomudro dekhte pare oti shigri.